বাঙালির বান্ধবী সমাচার

তবুও তোমায় জেনেছি, নারি, ইতিহাসের শেষে এসে; মানবপ্রতিভার
রূঢ়তা ও নিষ্ফলতার অধম অন্ধকারে
মানবকে নয়, নারি, শুধু তোমাকে ভালোবেসে
বুঝেছি নিখিল বিষ কী রকম মধুর হতে পারে ।
‒জীবনানন্দ দাশ

হালে ‘বান্ধবী’ কথাটাকে ইংরেজি ‘গার্লফ্রেন্ড’ শব্দটার সমার্থক হিসেবে ব্যবহারের চল শুরু হয়েছে। খুবই অসৎ চেষ্টা। কেননা, বান্ধবী কথাটা মোটেও গার্লফ্রেন্ডের সমার্থক না।

ইংরেজিতে গার্লফ্রেন্ড বলতে যা বোঝায় তা বাংলাতে ‘প্রেমিকা’ কথাটার একটা লঘুতর সংস্করণ। কেননা, প্রেমিকা শব্দটির যে সুগভীর আবেদন আছে, তা গার্লফ্রেন্ড শব্দটিতে নেই। অপরদিকে, বান্ধবী কথাটা মূলগতভাবে বন্ধু শব্দের লিঙ্গান্তর। তার সাথে রোমান্স না প্রেমের কোনো সম্পর্ক নেই। কিছুদিন আগে পর্যন্তও সহপাঠিনী বা সমবয়সী বা শৈশব থেকে একসাথে বেড়ে ওঠা কোনো মেয়ে বন্ধুকে একটা ছেলের জন্য বান্ধবী পরিচয় দিতে কোনো অসুবিধে ছিল না। গার্লফ্রেন্ডের সমার্থক হিসেবে কথাটা চালু করার চেষ্টার ফলে সেটি আজকাল একটু কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। যদি বলি, ‘মেয়েটি আমার বান্ধবী।’ তখন উল্টো প্রশ্ন, ‘মানে গার্লফ্রেন্ড?’ তখন ব্যাখ্যা দিতে হয়, ‘না, স্রেফ বন্ধু।’ প্রশ্নকর্তা তাতেও সন্তুষ্ট হন না, ‘আরে কিছু থাকলেও বা কী সমস্যা! লজ্জা পাচ্ছ কেন?’ একটি শব্দের সহজ সুন্দর অর্থকে একটি দুরভিসন্ধিমূলক অর্থ দ্বারা প্রতিস্থাপনের এই চেষ্টা খুবই দুঃখজনক।

কেন আমি মেয়ে বন্ধুটিকে বান্ধবী বলতে চাই, তার একটা কারণ আছে। কারণ, বান্ধবী শব্দটি বন্ধুর চেয়ে আরো গভীর, ব্যপক ও মমতাপূর্ণ। বান্ধবী, সে কোনো ছেলের বান্ধবী হোক বা কোনো মেয়ের, অপর কোনো ‘বন্ধু’র চেয়ে বেশি সহৃদয়, নির্ভরযোগ্য ও সহনশীল। কারণ, ঐতিহাসিকভাবে নারীরা মানবচরিত্রের শ্রেষ্ঠ কিছু গুণাবলী অর্জন করেছে। সেগুলো পুরুষ এখনো অর্জন করে উঠতে পারে নি। পুরুষ অধিপতি চরিত্রে থাকায় সমাজের কাছ থেকে সে গড়পড়তায় শোষকের মনস্তত্ত্ব অর্জন করেছে। ফলে মানুষের (মানুষটি পুরুষ বা নারী যাই হোক) একজন পুরুষ বন্ধু যতখানি সহৃদয় চরিত্র, নারীবন্ধু তার চেয়ে বেশি সহৃদয় হয়। এই কারণে, বন্ধুর চেয়ে বান্ধবী গুণগতভাবে উন্নত।

বান্ধবী কথাটা ব্যবহার করতে গিয়ে একধরণের প্যারাডক্স তৈরি হয়। ধরুন, আমার একটি বান্ধবী আছে। একজন বলে বসলো, ‘ওর সাথে তো তোমার প্রেম।’ আমি সবিনয়ে বলি, “না, আপনার সাথে আমার যেমন বন্ধুতা হওয়া সম্ভব, ওর সাথেও তেমনি বন্ধুত্ব।” মন্তব্যকারীর উত্তর, “ওটাও একরকমের প্রেম।” তা বটে। বাংলা ভাষায় প্রেম শব্দটার বিবিধ অর্থ আছে। রকমফেরও আছে বহু। দেশপ্রেম, ভাতৃপ্রেম, বন্ধুপ্রেম, ঈশ্বরপ্রেম প্রভৃতি।

আমার বান্ধবীর সাথে আমার যে সম্পর্ক, তা এরকম কোনো না কোনো অর্থে বা রকমফেরে প্রেম বলে চালিয়ে দেয়া যায়। কিন্তু, মনে রাখতে হবে প্রেম বলতে মানুষ প্রথমত বোঝে ‘যুবকযুবতীর ধ্বংসরহিত ভাববন্ধন’ (বঙ্গীয় শব্দকোষ, হরিচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়) অর্থাৎ রোমান্স। অতএব, যে কোনো সম্পর্ককে প্রেম বলে চালিয়ে দিতে গেলে মানুষের পক্ষে সেটাকে একটা রোমান্টিক সম্পর্ক ভেবে নেয়ার সুযোগ থাকে। সেটি কখনো কখনো বিব্রতকর। বান্ধবীর সাথে আমার যে সম্পর্ক তাতে ভালবাসা বিলক্ষণ আছে, আমার অপরাপর বন্ধুদের প্রতি যেমন থাকে। তার চেয়ে হয়তো একটু বেশিই আছে। কিন্তু তা বলে, সেটা রোমান্স হতে হবে তা নয়। সুতরাং, বান্ধবী কথাটা উচ্চারণ করলেই রোমান্সের গন্ধ খোঁজাটা একটা বিকৃতির লক্ষণ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

+ অনুসরণ

Get the latest posts delivered to your mailbox: